March 1, 2024, 7:56 pm


নেহাল আহমেদ, রাজবাড়ী

Published:
2023-01-26 02:58:41 BdST

রাজবাড়ীতে প্রতিমা বিকোচ্ছে কম, হতাশ শিল্পীরা


প্রত্যাশিত বায়না ও মূল্য না পাওয়ায় এবার সরস্বতী ঠাকুর গড়ে বিপাকে পড়েছেন বলে দাবি রাজবাড়ীর মৃৎশিল্পীদের।

পছন্দের স্বরসতী প্রতিমা পাওয়া যাচ্ছে পালপট্টি রাজবাড়ী বাজারে। দেড়শ টাকা থেকে শুরু করে পনেরশ টাকায় এক একটি স্বরসতী প্রতিমা বিক্রি হচ্ছে

রাজবাড়ী শহরের প্রধান সড়ক ধরে পালপট্টি রোডের ধারে পরপর বেশ কয়েকটি ঠাকুর বিক্রির দোকান রয়েছে। সবগুলিতেই এখন সরস্বতী প্রতিমা বিক্রির শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি চলছে।

একটি দোকানের কর্মী প্রশান্ত পাল জানান, প্রায় ৭৫টি প্রতিমা গড়া হয়েছে। তার মধ্যে মাত্র ৬টির আগাম বায়না মিলেছে। বাকিগুলি বাজারে বিক্রি করতে হবে। তিনি বলেন, ‘‘এক দিন পরে পুজো। একেবারে বাজার নেই।’’

ভবদিয়া গ্রামের মৃৎশিল্পী সুজিতকুমার পাল জানান, ৮০টি প্রতিমা গড়েছেন। আগাম বায়না পেয়েছেন মাত্র তিনটির। হাতে আর মাত্র এক দিন। তিনি বলেন, ‘‘অন্যবার আগেই সব ‘বুক’ হয়ে যায়। এ বার যে কি হবে জানি না!

মনোরঞ্জন পালের নিজস্ব কারখানা আছে মৃৎশিল্পী অরুণ পালের। তিনি আবার জানালেন, আগাম বরাত পেয়েছেন ঠিকই। কিন্তু দাম পাচ্ছেন না। নির্মাণ সামগ্রীর দাম গড়ে ১০ শতাংশ হারে বেড়েছে। অথচ বিক্রির সময় ক্রেতারা বাড়তি দাম দিতে নারাজ। তিনি বলেন, ‘‘এ বার লাভের গুড় পিঁপড়ে খাবে মনে হয়।’’

কেন এই পরিস্থিতি?

সাধারণত স্বরসতী প্রতিমা পাওয়া যায় রাজবাড়ীর পালপট্টি বাজারে। দেড়শ টাকা থেকে শুরু করে পনেরশ টাকায় এক একটি স্বরসতী প্রতিমা বিক্রি হয়। কিন্তু এবার পরিস্থিতি ব্যাতিক্রম।  

খোঁজ নিয়ে জানা যায় স্কুল পাড়ায়, ক্লাবে পুজো করার উৎসাহ অনেক কমেছে। তাছাড়া আগে পুজায় যে আড়ম্বর ছিলো তা এখন নেই। প্রতিটি পাড়ায় সাংস্কৃতিক উৎসব, নাটক এখন আর চোখে পড়ে না। স্বরসতী স্কুল এবং ব্যক্তিগত উদ্যোগেই যেটুকু পুজো হচ্ছে। প্রতিমা যা বিক্রি হচ্ছে সেই সৌজন্যেই।

কিন্তু সবথেকে বেশি প্রতিমা কিনে থাকে বিভিন্ন ক্লাব। মৃৎশিল্পীরা জানালেন, ক্লাবের পক্ষ থেকে একেবারেই অর্ডার মিলছে না। শেষ দিনে পরিস্থিতি আদৌ বদলাবে, এমন আশা তাঁরা করছেন না।

Unauthorized use or reproduction of The Finance Today content for commercial purposes is strictly prohibited.


Popular Article from FT বাংলা