April 18, 2024, 1:15 pm


বরকত উল্লাহ মারুফ

Published:
2024-02-28 18:46:50 BdST

বৈশ্বিক নাগরিক সমাজের নিন্দাবেসরকারি প্রতিনিধিদের অংশগ্রহনে বাধা দিয়ে নিজের বৈধতা হারাচ্ছে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা


সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবীতে চলমান বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার ত্রয়োদশ মন্ত্রী পর্যায়ের সম্মলনের তৃতীয় দিনে সেখানে অংশগ্রহনকারী বেসরকারি প্রতিনিধিরা নিরাপত্তার নামে তাদের স্বাভাবিক কর্মকাণ্ডে বাধা দেয়া নিন্দা জানিয়েছেন।

প্রথম দুইদিনে তাদের তিনজন প্রতিনিধিকে নানা কারণে সাময়িকভাবে গ্রেফতার করা হয়। এক থেকে দুই ঘন্টা আটক রেখে পরে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। তাদের একজন ভারতীয় কৃষক নেতা, যিনি তার পরিচিত এক সাংবাদিককে একটি কাগজ হস্তান্তর করছিল। সম্মেলন কেন্দ্রের ভেতরে লিফলেট বিতরণ গ্রেফতারযোগ্য অপরাধ হিসেবে তাকে তৎক্ষণাৎ গ্রেফতার করা হয়।

নরওয়ে ও যুক্তরাষ্ট্রের আরো দুইজন বেসরকারি প্রতিনিধিকে গ্রেফতার করা হয় সম্মেলন কেন্দ্রের ভেতরে ছবি তোলার অপরাধে। এছাড়াও নিরাপত্তার নামে তাদের কোনো প্রকার ব্যানার টাঙানো, প্রতিবাদী প্লেকার্ড ধারণ ইত্যাদি কাজেও বাধা দেয়া হয়।

বেসরকারি প্রতিনিধিদের একটি বৈশ্বিক নেটওয়ার্ক ‘আওয়ার ওয়ার্ল্ড ইজ নট ফর সেল’ এর ফ্যাসিলিটেটর ডেবোরাহ জেমস বলেন, আমি এর আগে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার দশটি মন্ত্রী সম্মেলনে অংশগ্রহন করেছি। এটি আমার একাদশ অংশগ্রহন। আমি এর আগে কোথাও এই ধরনের বাধার সম্মুখীন হইনি। এধরনের পরিবেশ সৃষ্টি করে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা তার বৈধতা হারাচ্ছে।

মিস জেমস আরো বলেন, আমরা বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার মহাপরিচালককে এটি অবহিত করেছি এবং তিনি বলেছেন আমরা আয়োজনকারী দেশের কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ করে বিষয়টি সমাধান করব।

ডব্লুউটিও’র বর্তমান মহাপরিচালক এনগোজি অকোনজো লুয়েলাকে বলা হয়, তিনি যা চান তা আদায় করে ছাড়েন। কিন্তু, এক্ষেত্রে তা ঘটতে দেখা যায়নি।

ইন্দোনেশিয়ার বেসরকারি প্রতিনিধি রহমত মওলানা সিদিক বলেন, বিশেষ করে উন্নয়নশীল ও স্বল্পোন্নত দেশের বেসরকারি প্রতিনিধিরা সম্মেলন কেন্দ্রের নিরাপত্তাবেষ্টিত এলাকায় একা একা হাঁটতেও ভয় পাচ্ছেন। যদি কোনো ছূতায় তাদের গ্রেফতার করা হয় এবং তাদের ডিপোর্ট করে দেশে ফেরত পাঠানো হয়, তাহলে তারা আর কখনই এদেশে আসার ভিসা পাবেন না। এই ঘটনায় তাদের পক্ষে অন্যান্য উন্নত দেশের ভিসা পাওয়াও কঠিন হয়ে যাবে।

আর্জেন্টিনার গবেষক সোফিয়া স্কাসেরা বলেন, আমি অনেক দূর থেকে এদেশে এসেছি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করার জন্য। গবেষণা থেকে প্রাপ্ত বিশ্লেষণ দিয়ে আমাদের ও অন্যান্য সরকারি প্রতিনিধিদের আমরা সাহায্য করে থাকি। কী করলে কখন গ্রেফতার হয়ে যাবো, এই ভয় নিয়ে কোনো কাজ করা যায় না। কাজ না করে আমাকে স্থবির হয়ে বসে থাকতে হচ্ছে।

ইক্যুইটিবিডির পলিসি রিসার্চ সমন্বয়ক বরকত উল্লাহ মারুফ জানান, বেসরকারি প্রতিনিধিদের অংশগ্রহন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, তারা নানা তথ্য ও বিশ্লেষণ দিয়ে সরকারি প্রতিনিধিদের জনকল্যানমূলক সিদ্ধান্ত নিতে সহায়তা করেন। কিন্তু এই ধরনের বাধা নিন্দাজনক।

Unauthorized use or reproduction of The Finance Today content for commercial purposes is strictly prohibited.


Popular Article from FT বাংলা